তাওহীদ

পীর-মুর্শিদ, অলী-আওলিয়াদের সম্পর্কে কতিপয় ভুল ধারণা

Alorpath 4 months ago Views:240

ঐ সমস্ত পীর-মুর্শিদ তাে দূরের কথা এমনকি আল্লাহর প্রেরিত নবী রাসূলগণও এই সমস্ত বিষয়ে কোন ক্ষমতা রাখেন না।


১. অনেকেই মনে করেন যে, পীর-মুর্শিদ, ওলী-আওলিয়ারা গায়েবের খবর রাখেন, কবরে শুয়ে থেকে মানুষের আবেদন-নিবেদন শুনতে পান, মানুষের ভাল-মন্দ করার ক্ষমতা রাখেন, দুনিয়া পরিচালনার ব্যাপারে তাদের হাত আছে। এই সমস্ত ধারণা সবই ভিত্তিহীন। ঐ সমস্ত পীর-মুর্শিদ তাে দূরের কথা এমনকি আল্লাহর প্রেরিত নবী রাসূলগণও এই সমস্ত বিষয়ে কোন ক্ষমতা রাখেন না।


২. পীর-মুর্শিদ, গাউস-কুতুব, যামানার মুজাদ্দিদ, ওলিয়ে কামেল, পীরে কামেল ইত্যাদি এই সমস্ত শব্দ প্রয়ােগ করে কাউকে উপাধি দেওয়া বা নিজে উপাধি গ্রহণ করা জায়েয নয়।


৩. অনেকে মনে করেন যে- ঐ সমস্ত নেংটা ফকীর, মাথায় জট ওয়ালা ফকীর, ৫-১০ কেজি ওজনের লােহার শিকল গলায় ঝুলানাে ফকীর ইত্যাদি ওদের কাছে অনেক কিছু আছে। এ সমস্ত ধারণা করা কোন্ ধরনের বােকামি শিক্ষিত ভাইরা একটু ভেবে দেখবেন কি? হা ঐ সমস্ত ফকীরদের কাছে যা কিছু আছে তাহলাে চরম বেহায়াপনা ও শয়তানী, আল্লাহ ও রাসূলের নাফরমানী, চরম দুর্গন্ধ ও বৈরাগ্যপনা। এসবগুলিই হারাম কাজ।


৪. যে কোন কবরে, মাযারে, পীর-মুর্শিদ ও ফকীরদের দরবারে এবং দয়াল বাবা ও খাজা-বাবাদের নামে ডেক চড়িয়ে ঐ সমস্ত জায়গায় আগরবাতি, মােমবাতি ও ধুপ জ্বালানাে, আতর ও গােলাপ জল ছিটানাে, ফুল দেয়া, হাঁস-মুরগী, গরু-ছাগল, টাকা-পয়সা ইত্যাদি জিনিসপত্র হাদিয়া ও মানত দেয়া সবই হারাম। এমনিভাবে তাদের নিকট কোন কিছু চাওয়া, প্রার্থনা করা, যে কোন বিপদ থেকে মুক্তির জন্য আবেদন-নিবেদন করা, ঐ সমস্ত কুবরে মাযারে সিজদা করা এগুলি পরিষ্কার শিরক ও হারাম। এছাড়া ঐ সমস্ত কবরে-মাযারে ও দরবারে এবং অন্য যেকোন স্থানে তবলা, হারমােনিয়াম, দোতারা, এ সমস্ত বাদ্যযন্ত্র বাজানাে এবং বিভিন্ন ধরনের গান বাজনা করা হারাম- এতে কোন সন্দেহ নেই।


৫. অনেকেই মনে করেন যে, বিনা অ্যুতে বড়পীর আব্দুল কাদের জিলানীর নাম উচ্চারণ করলে মাথা কাটা যায়। আবার কেউ কেউ বলেন যে, আড়াইটা পশম উঠে যায়। অনেকেই ধারণা করেন যে, বড়পীর আব্দুল কাদের জিলানীর অসীলায় বাগদাদে কবরের আযাব মাফ- সেখানে কবরের আযাব হয় না । আব্দুল কাদের জিলানী গায়েবের খবর রাখেন, মানুষদেরকে কঠিন বিপদ থেকে উদ্ধার করতে পারেন ইত্যাদি। এ সমস্ত কথা ও ধারণা সবই ভিত্তিহীন ও মিথ্যা শুধু তাই নয়, যিনি এ সমস্ত কথা বিশ্বাস করবেন, তিনি খাটি মুশরিক হিসাবে গণ্য হবেন।

আরো পড়ুন- পরকাল সম্পর্কে মনীষীদের অভিমত

৬, অনেকেই কোন কোন পীরকে হক্কানী পীর বলে সদ দিয়ে থাকে। এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা, কারণ কোন হক্কানী আলেম নিজেকে কোন দিনই পীর বলে দাবী করেন নি।


পরিশেষে আল্লাহ্ আমাদেরকে সকল প্রকার শিরকী ও বিদআতী কার্যক্রম এবং ভ্রান্ত অসীলা ধরা হতে মুক্ত হয়ে খাঁটি তাওহীদ ও সুন্নাতের উপর প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পূর্ণ তাওফিক দান করুন। আমীন।


আল্লাহ তাওফীক দানকারী এবং মহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের উপর সালাত ও সালাম বর্ষিত হােক।


- শাইখ আবুল কালাম আযাদ।



মন্তব্য