সিয়াম

সাতাশে লাইলাতুল কদর অন্বেষণ করা।

Alorpath 2 months ago Views:217

লাইলাতুল কদর রমযানে, বিশেষ করে শেষ দশকে, বরং সাতাশে


যির ইবনে হুবাইশ (র) বলেন: “আমি উবাই ইবনে কা'বকে জিজ্ঞাসা করে বলি: তােমার ভাই ইবনে মাসউদ বলেন: যে ব্যক্তি সারা বছর রাতে কিয়াম করবে সে লাইলাতুল কদর লাভ করবে। তিনি বললেন: আল্লাহ তার ওপর রহম করুন, তার উদ্দেশ্য মানুষ যেন অলস না হয়, অন্যথায় তিনি ভাল করে জানেন যে, লাইলাতুল কদর রমযানে, বিশেষ করে শেষ দশকে, বরং সাতাশে। অতঃপর তিনি শপথ করে বলেন, এতে সন্দেহ নেই লাইলাতুল কদর সাতাশে। আমি বললাম আপনি তা কিভাবে বলেন, হে আবু আব্দুর রহমান, তিনি বললেন: নিদর্শন দেখে অথবা রাসূলের বাতলানাে আলামত দেখে, “সেদিন সূর্য উদিত হবে যে, তার কিরণ থাকবে না।” (মুসলিম- ৭৬২, আবু দাউদ- ১৩৭৮, তিরমিযী- ৩৩৫১, আহমদ- ৫৪/১৩০)

ইমাম আহমদের এক বর্ণনায় আছে: “সেদিন সকালে সূর্য উদিত হবে, যেন তা গামলা, যার কোনাে আলাে নেই।” (আহমদ- ৫/১৩০, ইবন হিব্বান এ হাদীস সহীহ বলেছেন, হাদীস নং- ৩৬৯০) তিরযিমীর এক বর্ণনায় আছে, উবাই বলেছেন: “আল্লাহর শপথ আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ নিশ্চিত জানে যে, লাইলাতুল কদর রমযানে এবং তা সাতাশে, কিন্তু তিনি তােমাদেরকে সংবাদ দিতে চাননি, যেন তােমরা অলস বসে না থাক।” (তিরমিযী- ৭৯৩, তিনি হাদীসটি হাসান ও সহীহ বলেছেন।)


মুয়াবিয়া (রা) থেকে বর্ণিত, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন: “লাইলাতুল কদর হচ্ছে সাতাশের রাত।” (আবু দাউদ- ১৩৮৬, ইবন হিব্বান- ৩৬৮০, আলবানি তা সহীহ বলেছেন।)

আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা) বলেন: এক ব্যক্তি নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট এসে জিজ্ঞাসা করে: হে আল্লাহর নবী! আমি খুব বৃদ্ধ ও অসুস্থ লােক, আমার দ্বারা দাঁড়িয়ে থাকা খুব কঠিন, অতএব আমাকে এমন এক রাতের কথা বলুন, যেন সে রাতে আল্লাহ আমাকে লাইলাতুল কদর দান করেন, তিনি বললেন: তােমার উচিত সাতাশ আঁকড়ে ধরা।” (আহমদ- ১/২৪০, বায়হাকি- ৪/৩১২, তাবরানি ফিল কাবির-১১/৩১১, হাদীস নং- ১১৮৩৬, হায়সামি ফি মাজমাউয যাওয়ায়েদ'- ৩/১৭৬,

শিক্ষা ও মাসায়েল ৭টি

১. আমাদের পূর্বসূরিগণ কল্যাণের প্রতি আগ্রহী ছিলেন, তারা ইবাদতে মগ্ন থাকার জন্য ফযীলতপূর্ণ সময় অনুসন্ধান করতেন।

২. কারণবশত কোনাে বিষয় না বলা আলেমের জন্য বৈধ, যেমন মানুষের অলসতা ও নেক আমলে ক্রটির সম্ভাবনা ইত্যাদি।

৩. নিশ্চিত জ্ঞান বা প্রবল ধারণার ওপর কসম করা বৈধ।

৪. কিরণহীন সাদা-উজ্জ্বলতা নিয়ে সকালে সূর্যের উদয় হওয়া, লাইলাতুল কদরের আলামত।


৫. মুসলিমদের উচিত ফযীলতপূর্ণ মৌসুমের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করা, যেমন লাইলাতুল কদর অন্বেষণে রমযানের শেষ দশক, যেন অল্প আমলে তার অধিক কল্যাণ অর্জন হয় ।

৬. আলেমদের বিশুদ্ধ মত হচ্ছে লাইলাতুল কদর পরিবর্তনশীল, তবে সাতাশের রাত অধিক সম্ভাবনাময়, যেমন উবাই ইবনে কাব শপথ করে বলেছেন।

৭. নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বৃদ্ধ লােককে লাইলাতুল কদর সাতাশে বলা অন্যান্য হাদীসের পরিপন্থী নয়, যেখানে অন্যরাতে লাইলাতুল কদর বলা হয়েছে, কারণ নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাকে সে বছরের কথা বলেছেন, যে বছর সে জিজ্ঞাসা করেছে। লাইলাতুল কদর সম্পর্কে সব হাদীসের মধ্যে সমতা রক্ষার জন্য এ ব্যাখ্যার বিকল্প ব্যাখ্যা নেই।



মন্তব্য